13.6 C
New York
Sunday, September 20, 2020

Buy now

সাইন্স বী: চলো ভিন্নরূপে বিজ্ঞান শিখি

আমাদের দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীদের কাছে বিজ্ঞান একটি ভীতির বিষয়। পুঁথিগত পাঠ্যবই এ গৎবাঁধা সিলেবাস এই ভীতির জন্য দায়ী, বললে ভুল হবে না। কিন্তু বিজ্ঞান কি শুধু পাঠ্যবইয়ে সীমাবদ্ধ। না! বিজ্ঞান এর পরিধি কেউ বেষ্টনী দিয়ে আঁটকে রাখতে পারে না। অথচ, আমাদের দেশের ছাত্রছাত্রীরা মুক্ত ভাবে বিজ্ঞান চর্চা করতে দ্বিধাবোধ করে। এর অন্যতম কারন হলো, পাঠ্যবইয়ে বিজ্ঞানকে জটিলতম করে ব্যাখ্যা করা ও ইংরেজী জার্নাল গুলো সহজলভ্য না হওয়া। এখন পর্যন্ত দেশে বিজ্ঞান চর্চা নিয়ে খুব কম প্রতিষ্ঠান কাজ করছে, আর ইংরেজী আমাদের জন্য আরো এক ভীতিকর বিষয় হওয়ায় আমরা ইংরেজী জার্নাল থেকে বিজ্ঞান নিয়ে তেমন চর্চা করতে আগ্রহ বোধ করি না। তাই বিজ্ঞানকে সকলের কাছে সহজতর করে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে একদল শিক্ষার্থী। গ্রাম-শহর নির্বিশেষে সমাজের প্রতিটি স্তরের ছাত্রছাত্রীদের জ্ঞানতৃষ্ণা মেটানো ও তাদেরকে ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জের জন্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিতে দক্ষভাবে প্রস্তুত করে তোলার লক্ষ্যেই যাত্রা শুরু করে ‘সায়েন্স বী’ টীম।

যাত্রা শুরুঃ


২০১৮ সালের ৩১শে এপ্রিল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী মবিন সিকদারের উদ্যোগে যাত্রা শুরু করে সায়েন্স বী। শুরুটা ছিলো একটি মাসিক ম্যাগাজিন প্রকাশের মাধ্যমে। এরপর ধীরে ধীরে নানা প্রতিকূলতা পেরিয়ে এখন সায়েন্স বী এগিয়ে যাচ্ছে নিজস্ব গতিতে। বর্তমানের সাইন্স বী তে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে আছে দেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া এক ঝাঁক স্বপ্নবাজ ছাত্রছাত্রী, যারা প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে বিজ্ঞানকে সকলের কাছে আরও সাবলীল ও সুন্দরভাবে তুলে ধরার জন্য।

দুই বছরের এই যাত্রায় সায়েন্স বী-এর ফেসবুক গ্রুপ “সায়েন্স বী ফ্যামিলি” এখন দেড় লক্ষেরও বেশি বিজ্ঞান অনুরাগীদের মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে। প্রতিনিয়ত তারা নতুন কিছু শিখছে, নিজে জানছে ও অন্যকে জানাচ্ছে। সায়েন্স বী পেইজ ও ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রতিদিন প্রকাশিত হচ্ছে নানান কৌতুহলী, রহস্যময় এবং জটিল সব বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা সম্বলিত ইউনিক কন্টেন্ট।

বাংলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অন্যতম ওয়েবসাইটঃ


সায়েন্স বী এর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ হলো সায়েন্স বী ওয়েবসাইট www.sciencebee.com.bd । বাংলাদেশের প্রথম বিজ্ঞানভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম “ডেইলি সায়েন্স” সায়েন্স বী এর উদ্যোগে গড়ে তোলা একটি প্রোগ্রাম, যেখানে প্রতিদিনই থাকছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জগতের সর্বশেষ খবরাখবর সহ স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, টেকনোলজি ও সচেতনতামূলক নানা ধরনের আপডেট। ইতোমধ্যে ৩০০ এর বেশি নিউজ প্রকাশিত হয়েছে এখানে, যার সবগুলোই লিখেছে সায়েন্স বী নিউজ টিমের সদস্যরা।

এছাড়াও আছে “বী ব্লগ”, যেখানে অনেক অভিজ্ঞ ও নতুন লেখক সকলেই নিজের অথ্যবহুল লেখা প্রকাশের মাধ্যমে নিজের লেখনীশক্তি ঝালাই করতে পারছে। বর্তমানে ব্লগে ২০ জন লেখক নিয়মিত লিখছেন ও পড়ায় ২০০ টি ব্লগ প্রকাশিত হয়েছে। এই ব্লগ সাইটটি উন্মুক্ত, চাইলে আপনি লিখতে পারেন বিজ্ঞান ভিত্তিক যেকোনো ব্লগ।

এছাড়াও ওয়েবসাইটের অনন্য আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো প্রশ্নোত্তর বিভাগ বা Bee QnA সেকশন। এটি বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞানভিত্তিক প্রশ্নোত্তর আর্কাইভ, যেখানে আছে ১০০০ টির ও বেশি বিজ্ঞানমূলক জটিল প্রশ্নের সহজ সাবলীল উত্তর। এছাড়াও আছে প্রশ্নের উত্তর দিয়ে, নতুন প্রশ্ন যুক্ত করে পয়েন্ট অর্জন ও পুরস্কার জিতে নেবার সুযোগ।
বর্তমানে ওয়েবসাইটের রেজিস্টার্ড ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২৬ হাজার যা প্রতিদিনই বাড়ছে। প্রতিদিন গড়ে ৩০০০-৫০০০ শিক্ষার্থী প্রতিনিয়ত ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপডেটেড রাখছে নিজেদের।

বর্তমানে ভিজুয়াল কন্টেন্ট নতুন কিছু শেখার জন্য খুবই জনপ্রিয় ও গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। সে লক্ষ্যেই আরিফ হোসেন রাজনের নেতৃত্বে কন্টেন্ট প্রোডাকশন টিম নিয়মিত বিভিন্ন রকম মজাদার ও চমকপ্রদ বিষয়ের উপরে ভিডিও তৈরি করে, যা চমৎকার উপস্থাপনার মাধ্যমে শেখাকে আরো আনন্দঘন করে তোলে।

সায়েন্স বী এর ফেসবুক কমিউনিটিতে যুক্ত প্রায় দুই লক্ষ কৌতূহলী শিক্ষার্থীর নানাবিধ প্রশ্ন, নতুন তথ্য জানানো ও নির্ভরযোগ্য তথ্য চাহিদা পূরণ করে যাচ্ছে গ্রুপ ম্যানেজমেন্ট টিম। প্রতিদিন গ্রুপে প্রায় ১২০০ এর বেশি তথ্যমূলক পোস্ট, আর্টিকেল, ফ্যাক্টস, ব্লগ, প্রশ্ন প্রকাশিত হয়, যার নির্ভরযোগ্যতা যাচাই করে সর্বোচ্চ যৌক্তিক উত্তর দিতে বদ্ধপরিকর ম্যানেজমেন্ট টিমের সদস্যরা।

শিক্ষার্থীদেরকে শুধু জানানোই নয়, তারা যেন তা মনে রাখে এবং নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে সে জ্ঞান কাজে লাগাতে পারে, সে জন্য সায়েন্স বী ইতোমধ্যে ৫০টির ও বেশি কন্টেস্টের আয়োজন করেছে এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে উৎসাহ ও আগ্রহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিজয়ীদেরকে পুরস্কৃত করেছে। এছাড়াও সায়েন্স বী ২০১৯ সালের ডিসেম্বর ২৭-২৮ তারিখে বাংলাদেশ ইয়ুথ লিডারশিপ সেন্টার আয়োজিত ইয়ুথ কার্নিভালে অংশ নিয়েছে, যেখানে তাদের স্টলে দুইদিনব্যাপী ২০০০ এর বেশি মানুষ বিজ্ঞান ও ভবিষ্যৎ উচ্চশিক্ষার নানা বিষয়ে জানতে পেরেছে।

THE BEE SHOW | Lavalamp | Elephant Toothpaste | EPISODE 02 | দ্যা বী শো, পর্ব – ০2| SCIENCE BEE |

বর্তমানে সায়েন্স বীতে ৪ টি টিমে ভাগ হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ৪০ জনের বেশি সদস্য কাজ করছে। টিমগুলো হলো ডিজাইন টিম, কন্টেন্ট প্রোডাকশন টিম, নিউজ রাইটিং টিম ও ম্যানেজমেন্ট টিম। ডিজাইন টিমের সদস্যরা প্রতিদিন বিজ্ঞানসম্পর্কিত গবেষণাভিত্তিক নানা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নিয়ে ফ্যাক্ট ডিজাইন করেন, যা প্রকাশিত হয় সায়েন্স বী এর অফিশিয়াল পেইজ ও গ্রুপে।

সায়েন্স বী বাংলাদেশের এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যা প্রতিনিয়ত বিজ্ঞানপিপাসু ও কৌতূহলী শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানচর্চা ও জানার আগ্রহ পূরণ করে যাচ্ছে। তাদের মিশন হলো বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির দ্বার সবার জন্য উন্মুক্ত করে সবাইকে এ অগ্রযাত্রায় শামিল হতে সুযোগ করে দেওয়া।

Related Articles

শিক্ষা দুঃখ ও আশার মধ্যে সেতু বন্ধন স্বরূপ

শিক্ষার শুরু স্বাক্ষরতা দিয়ে অর্থাৎ সাক্ষরতা বলতে সাধারণত অক্ষর জ্ঞানসম্পন্নতাকেই বোঝায়।  সাক্ষরতা হচ্ছে পড়া, অনুধাবন করা, মৌখিকভাবে এবং লেখার বিভিন্ন পদ্ধতিতে ব্যাখ্যা করা,...

সাইন্স বী: চলো ভিন্নরূপে বিজ্ঞান শিখি

আমাদের দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীদের কাছে বিজ্ঞান একটি ভীতির বিষয়। পুঁথিগত পাঠ্যবই এ গৎবাঁধা সিলেবাস এই ভীতির জন্য দায়ী, বললে ভুল হবে না। কিন্তু বিজ্ঞান কি শুধু পাঠ্যবইয়ে সীমাবদ্ধ। না! বিজ্ঞান এর পরিধি কেউ বেষ্টনী দিয়ে আঁটকে রাখতে পারে না।

অদ্বিতীয়া রাজকন্যা সিমরিন লুবাবা

রুপকথার গল্পে তোমরা অনেকেই রাজকন্যা,রাজপুত্রর গল্প শুনে থাকবে। সেই রাজকন্যা আকাশ থেকে নেমে আসে। কিন্তু তোমাদেরকে আজকে আমরা এক সত্যিকারের রাজকন্যার কথা...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

20,691FansLike
2,367FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -

Latest Articles

শিক্ষা দুঃখ ও আশার মধ্যে সেতু বন্ধন স্বরূপ

শিক্ষার শুরু স্বাক্ষরতা দিয়ে অর্থাৎ সাক্ষরতা বলতে সাধারণত অক্ষর জ্ঞানসম্পন্নতাকেই বোঝায়।  সাক্ষরতা হচ্ছে পড়া, অনুধাবন করা, মৌখিকভাবে এবং লেখার বিভিন্ন পদ্ধতিতে ব্যাখ্যা করা,...

সাইন্স বী: চলো ভিন্নরূপে বিজ্ঞান শিখি

আমাদের দেশের বেশিরভাগ শিক্ষার্থীদের কাছে বিজ্ঞান একটি ভীতির বিষয়। পুঁথিগত পাঠ্যবই এ গৎবাঁধা সিলেবাস এই ভীতির জন্য দায়ী, বললে ভুল হবে না। কিন্তু বিজ্ঞান কি শুধু পাঠ্যবইয়ে সীমাবদ্ধ। না! বিজ্ঞান এর পরিধি কেউ বেষ্টনী দিয়ে আঁটকে রাখতে পারে না।

অদ্বিতীয়া রাজকন্যা সিমরিন লুবাবা

রুপকথার গল্পে তোমরা অনেকেই রাজকন্যা,রাজপুত্রর গল্প শুনে থাকবে। সেই রাজকন্যা আকাশ থেকে নেমে আসে। কিন্তু তোমাদেরকে আজকে আমরা এক সত্যিকারের রাজকন্যার কথা...

বোকা মানুষ ও পৃথিবী

দুটি অদ্ভুত প্রাণী মহাশূন্যে ঘুড়ে বেড়াচ্ছে।দেখতেও বেশ ভয়ংকরই।ওরা তো পৃথিবীর কেউ নয়।নিশ্চই মহাশূন্যে আমাদের কল্পনার চেয়েও মিলিয়ন,বিলিয়ন আলোকবর্ষ দূর থেকে ওরা এসেছে।শরীরে তাকালে প্রায় ...

শিশুতোষ চলচ্চিত্রঃ ফাইন্ডিং ডোরি

ডরি,একটি ছোট্ট সুন্দরী নীল মৎস্য। যার কি না ভুলে যাওয়া ব্যামো আছে। কোনো কিছু মনে রাখতে পারে না। তাই তার পিতা-মাতা অনেক চিন্তিত তার এই রোগ নিয়ে। একসময় ডরি হারিয়ে যায় তার পিতা-মাতা থেকে।