More
    Homeমুক্তিযুদ্ধআমাদের সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে নিয়ে আসি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনাই

    আমাদের সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে নিয়ে আসি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনাই

    বাঙ্গালী জাতির সাথে জড়িয়ে আছে অনেক ইতিহাস।ইতিহাসের জন্মভূমিও বলা যেতে পারে এই চিরসবুজের দেশটিকে।১৭৫৭ সালে পলাশীতে যে ইতিহাসের জন্ম হয়েছিল তা ক্রমাগত ভাবে বাঙ্গালীকে নানা ভাবে সংগঠিত করেছে।১৯৫২ সালে এই জাতি মাতৃভাষার জন্য জীবন দিয়ে প্রমাণ করেছে তারা বিশ্বে অদ্বিতীয়।১৯৭১ আমাদের ইতিহাসকে আরো মহিমান্বিত করেছে চির স্মরণীয় করে রেখেছে।ভাষা আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধ আমাদের সব থেকে বড় অর্জন এবং বড় ইতিহাস।মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি।কিন্তু আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম তথা আমাদের শিশু কিশোর কিশোরীরা আমাদের সেই ইতিহাস সম্পর্কে কতটা জানে?আমরা বড়রাইবা কতটা এ বিষয়ে তাদের জানিয়েছি?মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে ওরা যদি না জানে তবে কি করে দেশ প্রেম জন্মাবে? কি করে বুঝবে একটা স্বাধীন দেশ পাওয়ার জন্য কতটা ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে এবং সেই স্বাধীনতা রক্ষার জন্য আমাদের কি কি করা উচিত। তাই আসুন আমাদের সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে নিয়ে আসি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনাই।ওরা ওদের দেশ এবং দেশের ইতিহাস জানুক।হৃদয় থেকে হৃদয়ে ধারন করুক মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত সোনার বাংলা।

    এইতো সেদিন আমাদের ক্ষুদে বন্ধু ইহাব গিয়েছিল মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর দেখতে। ওর পরিবার ওকে নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে নিজেরা যেমন সেই স্মৃতিটা আবার দেখতে চেষ্টা করেছেন তেমনি ছোট্ট বন্ধুটিও দেশ ও দেশের মানুষের ত্যাগের কথা জানতে পেরেছে। তাই আমাদের উচিত আমাদের সন্তানদের ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার জন্য ফ্যান্টাসী কিংডম বা ওয়ান্ডারল্যান্ডে নেওয়ার আগে একবার মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে ঘুরে আসা উচিত।

    মুক্তিযুদ্ধ আমাদের আবেগ,
    মুক্তিযুদ্ধ আমাদের বিবেক,
    মুক্তিযুদ্ধ আমাদের অহংকার,
    আসুন – আমাদের সন্তানদের মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরে নিয়ে আসি, মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনাই। কতটা ত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি আমাদের প্রিয় এই মা-মাটি-মৃত্তিকা, তা তাদের জানাই। সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে আমাদের আগামী প্রজন্ম কে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তুলি।

    নেপোলিয়ান বলেছিলেন আমাকে একজন শিক্ষিত মা দাও আমি তোমাদের একটা শিক্ষিত জাতি দেবো।আর আমরা মনে করি আমাদের ছোটদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের সত্যিকার ইতিহাস ঢুকিয়ে দিন দেখবেন ওরা বেপথে যাবেনা এবং ওরা নিশ্চই এই দেশটিকে দেখে রাখবে আর উন্নতির শীর্ষে পৌছে যাবে। আমাদের এই সোনার বাংলার সোনালী ইতিহাস প্রতিটি শিশু কিশোর কিশোরীর জানা উচিত এবং সে জন্য সবার আগে আমাদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে। ওদের কাছে সেই সব যুদ্ধ দিনের গল্প করতে হবে। জানাতে হবে সত্যিকার ঘটনা।

    ছোটদেরবন্ধু

    ছোটদেরবন্ধু
    ছোটদেরবন্ধুhttps://www.chotoderbondhu.com
    সুন্দর আগামীর স্বপ্ন দেখতে দেখতে জীবনের এক একটি দিন পার করা।সেই ধারাবাহিকতায় ছোটদেরবন্ধু গড়ে উঠছে তিল তিল করে।
    RELATED ARTICLES

    Most Popular